ঘরে থাকার ঈদের সাজ

 

এবারের ঈদটা একটু আলাদা। প্রতি বছরের মতো কোথাও যাওয়ার তাড়া নেই। অনেকের নতুন পোশাক কেনার সুযোগও হয়নি। তবুও ঈদ তো ঈদই। খুশির এই দিনে মন খারাপ করে থাকার কোনো মানে নেই।

করোনার কারণে এবারের ঈদ সাদামাটা। তবুও সাজলে মন ভালো থাকে। তাই ঈদের দিনটিতে পরিপাটি হয়ে থাকতে পারেন। যেহেতু ঘরেই থাকা হবে, তাই খুব বেশি মেকআপ করার প্রয়োজন নেই। নো মেকআপ লুকই এবারের ঈদের ট্রেন্ড। সামান্য ওয়েল ফ্রি ময়েশ্চারাইজার দিয়ে শুধু ফেস পাউডারেই হতে পারে সকালের বেইস। রোদে যাওয়া হবে না, তাই সানস্ক্রিনের প্রয়োজন নেই। তবে যদি সেজে ছাদে যাওয়ার পরিকল্পনা থাকে, তাহলে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে।
ঈদের দিন গরম থাকার সম্ভাবনাই বেশি। তাই ঈদের সকালের জন্য বেছে নিতে হবে হালকা পাতলা সুতি কাপড়ের পোশাক। যদি কেনাকাটা না করে থাকেন (অনলাইনে অনেকেই কেনাকাটা করেছেন), তাহলে আলমারি থেকে প্রিয় শাড়িটি বের করে পরতে পারেন। শাড়ির সাথে খোপা করে চুলে গুঁজে দিতে পারেন বারান্দায় ফুটে থাকা কোনো ফুল। আইব্রোটা এঁকে নিতে হবে। হালকা কাজল আর ছোট্ট একটা টিপ দিতে ভুলে গেলে চলবে না। ঠোঁটে ন্যুড শেডের কোনো লিপস্টিক লাগিয়ে নিতে পারেন। হালকা গহনা পরতে পারেন। অথবা কানে একটা ঝুমকাই যথেষ্ট।

সালোয়ার কামিজ বা টপসের সাথেও মেকআপ হওয়া চাই হালকা। চুল পনিটেল করে নিলে পোশাকের সাথে ভালো মানাবে। চুল খুলে রাখতে চাইলে কার্ল করে নিতে পারেন নিচের চুলগুলো। কাছে ছোট্ট দুল।
ঈদের দিন রাতেও এবার অতিথিদের আসার তাড়া নেই। তাই বলে তো সাজ বাদ দেয়া যায় না। তাই একটু গাড় রং এর পোশাক বেছে নিতে পারেন রাতে পরার জন্য। সাথে মেকআপে ভারী বেইসের প্রয়োজন নেই এবেলাতেও। চাইলে সিসি ক্রিম ব্যবহার করা যেতে পারে। একটু ব্লাশঅন ব্যবহার করতে পারেন রাতে। লিপস্টিকটা দিন গাড় রঙ এর। তাহলে ভিন্নতা আসবে সাজে।
ভারী করে মাসকারা ব্যাবহার করতে পারেন। আইলাইনার আর কাজল দিন। ইউটিউবে চুলের স্টাইলের টিউটোরিয়াল দেখে সুন্দর কোনো হেয়ারস্টাইল করে নিতে পারেন। এখন শিখে রাখলে পরে কাজে লাগবে।
পরবর্তী পোষ্ট
Get the latest article updates from this site via email for free!